এনআরসি নিয়ে সুপ্রিম কোর্টে তৃণমূলের এমপি মহুয়া

Published: শনিবার, ডিসেম্বর ১৪, ২০১৯ ৬:২১ অপরাহ্ণ   |   Modified: শনিবার, ডিসেম্বর ১৪, ২০১৯ ৬:২২ অপরাহ্ণ
 

স্বাধীন খবর ডট কম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

ভারতে নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের বিরুদ্ধে এবার সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয়েছেন তৃণমূল সংসদ সদস্য মহুয়া মৈত্র। শুক্রবার (১৩ ডিসেম্বর) সুপ্রিম কোর্টে মামলা করেন মহুয়া।

এদিকে, বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন কংগ্রেস সভাপতি সোনিয়া গান্ধী।

শনিবার (১৪ ডিসেম্বর) ভারতের নয়াদিল্লির রামলীলা ময়দানে ভারত বাঁচাও সমাবেশে নাগরিকত্ব আইনসহ বিভিন্ন ইস্যুতে মোদি সরকারের তীব্র সমালোচনা করেন কংগ্রেসের এ শীর্ষ নেতা।

এছাড়াও ভারতের সম্প্রতি নাগরিকত্ব সংশোধন সম্পর্কিত দুই বিল; এনআরসি ও ক্যাব নিয়ে তীব্র সমালোচনার পর এ নিয়ে গণআন্দোলনের ডাক দিয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতার বন্দ্যোপাধ্যায়।

আগামী রোববার থেকে টানা চার দিন এ কর্মসূচি পালন করার কথা জানান তিনি। রবি, সোম, মঙ্গল ও বুধবার কলকাতাসহ রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে প্রতিবাদ মিছিল করবে তৃণমূল সুপ্রিমো।

আবারো পশ্চিমবঙ্গে এনআরসি বা ক্যাব এর কোনোটিই কার্যকর হবে না বলে নিশ্চিত করেন মমতা। নিজের ফেসবুকে ভেরিফায়েড পেজে সবার উদ্দেশ্যে এক ভিডিও বার্তায় এ তথ্য প্রকাশ করেন তিনি।


মহুয়ার পরে কংগ্রেসের রাজ্যসভা সংসদ সদস্য জয় রাম রমেশও সুপ্রিম কোর্টে নাগরিকত্ব আইন সংশোধনীকে ‘অসাংবিধানিক’ বলে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে মামলা করেছেন। এরপর ‘রিহাই মঞ্চ’ ও ‘সিটিজেনস এগেন্সট হেট’ নামক দু’টি বেসরকারি সংগঠনও সুপ্রিম কোর্টে একসঙ্গে মামলা করে। খবর আনন্দবাজার।

গত বৃহস্পতিবার ইন্ডিয়ান ইউনিয়ন অব মুসলিম লিগ সুপ্রিম কোর্টে মামলা করে। বিল পাসের আগেই বছরের গোড়ায় আসামের বিদ্বজ্জনেরা নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের বিরুদ্ধে মামলা করে। ওই সময় সুপ্রিম কোর্ট বলেছিলেন, এই বিল পাসের পরে শুনানি হবে।  

শুক্রবার প্রধান বিচারপতি শরদ এ বোবডের বেঞ্চে মহুয়ার আইনজীবী আর্জি জানান, দ্রুত এই মামলার শুনানি হওয়া দরকার। কিন্তু প্রধান বিচারপতি জানান, দ্রুত শুনানির জন্য রেজিস্ট্রারের কাছে যেতে হবে।

তৃণমূলপন্থী আইনজীবীদের আশা, আগামী সপ্তাহেই এর শুনানি হতে পারে।

এরপরে সুপ্রিম কোর্টে মামলা করেন জয়রাম রমেশ। তার পিটিশনে বলা হয়েছে, নাগরিকত্ব আইনে সংশোধন সংবিধানের মৌলিক অধিকারের ভীতে নির্লজ্জ হামলা। তার অভিযোগ, সংবিধানের ১৪-তম অনুচ্ছেদ ও ২১-তম অনুচ্ছেদে প্রদত্ত মৌলিক অধিকার লঙ্ঘন করা হচ্ছে।

এদিকে, নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল ঘিরে বিক্ষোভ চলছে আসামসহ উত্তরপূর্বের রাজ্যগুলোতে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে সেখানে সেনা মোতায়েন করা হয়েছে। আসামের পাশাপাশি ত্রিপুরা, মেঘালয় ও পশ্চিমবঙ্গেও বিক্ষোভ চলছে।

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রীর পর এবার আরও ৫টি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী বিজেপি সরকারের নাগরিকত্ব বিলের তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছে। দিল্লি, পাঞ্জাব, ছত্তিশগড়, কেরালা ও মধ্যপ্রদেশে নতুন নাগরিকত্ব আইন কোনভাবেই প্রয়োগ করতে দেয়া হবে না বলে জানিয়েছেন রাজ্যগুলোর মুখ্যমন্ত্রী।

এদিকে, ভারতে পাস হওয়া নতুন নাগরিকত্ব আইনকে বৈষম্যমূলক অ্যাখ্যা দিয়ে তা পুনর্বিবেচনার আহ্বান জানিয়েছে জাতিসংঘের মানবাধিকার কমিশন।

জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক মুখপাত্র জেরেমি লরেন্স বলেন, ভারতের নাগরিকত্ব আইনটি নিয়ে জাতিসংঘ উদ্বিগ্ন। এই আইনের বৈধতা দেশটির সর্বোচ্চ আদালতে চ্যালেঞ্জের মুখে পড়বে। আমরা আশা করি, আন্তর্জাতিক মানবাধিকার আইনের প্রতি ভারতের যে দায়বদ্ধতা রয়েছে, আদালত তা সতর্কতার সঙ্গে বিবেচনা করবেন।

এরমধ্যেই, ভারতের উত্তর পূর্বাঞ্চলে নিজ দেশের নাগরিকদের ভ্রমণের ক্ষেত্রে বিশেষ সতর্কতা জারি করেছে যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্য। বিশেষ প্রয়োজন ছাড়া রাজ্যগুলোতে না যাওয়ার পরামর্শ দেয়া হয়েছে।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
 
WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com