চাঁদাবাজি-ভাঙচুর মামলায় ছাত্রলীগের দুই নেতা গ্রেফতার

Published: বৃহস্পতিবার, ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০২০ ১২:০২ পূর্বাহ্ণ   |   Modified: বৃহস্পতিবার, ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০২০ ১২:০২ পূর্বাহ্ণ
 

স্বাধীন খবর ডট কম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

রাজশাহীতে কোচিং সেন্টারের পরিচালকের থেকে চাঁদা দাবি ও ভাঙচুর মামলায় রাজশাহী কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নাইমুল হাসান নাঈম ও সিটি কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক নেতা আসাদকে গ্রেফতার করেছে বোয়ালিয়া মডেল থানা পুলিশ।বুধবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) ভিন্ন ভিন্ন অভিযান পরিচালনা করে তাদের গ্রেফতার করা হয়। এদের মধ্যে নাইমুল হাসান নাঈমকে সিএনবির মোড় এলাকা ও আসাদকে রাজশাহী সিটি কলেজ এলাকা থেকে গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে বলে বোয়ালিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নিবারণ চন্দ্র বর্মন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।তিনি বলেন, কোচিং পরিচালকের থেকে চাঁদা দাবি ও ভাংচুর ঘটনায় গত রোববার সাধারণ ডায়েরি করা হয়। এর পরে গতকাল মঙ্গলবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে মামলা হয়েছে। এই মামলায় রাজশাহী কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নাইমুল হাসান নাঈম, আসাদ ও মারুফ এই মামলার আসামি। এছাড়া অজ্ঞাত তিন আসামিও রয়েছে। এই মামলার বাদী সোনাদিঘীর মোড় এলাকার ইউনি কেয়ার কোচিংয়ের পরিচালক রায়হান হোসেন।মামলা সূত্রে জানা যায়, রাজশাহী কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নাইমুল হাসান নাঈম, আসাদ ও মারুফসহ আরো বেশ কয়েকজন কোচিংটির কাছ থেকে দীর্ঘদিন থেকে মোটা অঙ্কের টাকা চাঁদা দাবি করে আসছিলেন। এর আগেও তারা বিভিন্নভাবে এই কোচিংয়ের কাছ থেকে চাঁদা আদায় করেছেন। কিন্তু এবার চাঁদা দিতে রাজি না হওয়ায় গত রোববার রাত ৮টায় নাইম ও তার অনুসারীরা কোচিং সেন্টারে ভাংচুর করেন।কোচিংয়ের পরিচালক রায়হান বলেন, গত বৃহস্পতিবার আসাদ ও মারুফ এসে তিন হাজার টাকা চাঁদা নিয়ে যায়। সেদিন তারা কোচিংয়ের জানালা, টেবিল, চেয়ার ভাংচুরের পাশাপাশি এক কর্মচারীকে মারধরও করে। এরপর গত রোববার আবার তারা চাঁদা দাবি করে। তখন আমি টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানাই। নাইম জানায় টাকা না দিলে কোচিং ভাংচুর হবে। আমিও তাকে বলি যে ভাংচুর করতে এলে আমিও প্রতিহত করার ব্যবস্থা করব। কিন্তু গত রোববার আমার অনুপস্থিতিতে কোচিংয়ের গেইট ভাংচুর করে যায় নাইম, আসাদ ও মারুফসহ অনেকেই। পরে আমি থানায় অভিযোগ করি।বোয়ালিয়া থানার (ওসি) কর্মকর্তা নিবারণ চন্দ্র বর্মণ বলেন, কোচিং ভাংচুরের ঘটনায় তারা ৩০ হাজার টাকা দাবি করে। এই ঘটনায় রাজশাহী কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নাইমুল হাসান নাঈম ও ও সিটি কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক নেতা আসাদকে গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
 
WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com