ডুমুরিয়ায় রোজার শুরুতেই লংকা বেগুনের লংকা কান্ড।

Published: শনিবার, এপ্রিল ২৫, ২০২০ ৫:৩৯ অপরাহ্ণ   |   Modified: শনিবার, এপ্রিল ২৫, ২০২০ ৫:৩৯ অপরাহ্ণ
 

স্বাধীন খবর ডট কম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  


মোক্তার হোসেন,ডুমুরিয়া, খুলনা।খুলনার ডুমুরিয়ায় বিভিন্ন কাঁচাবাজার,মাছ ও মাংসের বাজারে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম অস্থির।রোজার শুরুতে হঠাৎ করেই বাজার মূল্য অস্বস্তির কারণে বিপাকে পড়েছে সাধারণ মানুষ।
শীতকাল শেষ হয়ে গরমকাল শুরুর পাশাপাশি দেশ এখন করোনা মহামারিতে আক্রান্ত।সরকারের পাশাপাশি বিভিন্ন সামাজিক সেচ্ছাসেবী সংগঠনের উদ্যোগে নেওয়া হয়েছে ফ্রি তে সবজিসহ খাদ্য সহায়তা বিতরণে কার্যক্রম।রোজার শুরুতেই বাজার মূল্য ক্রয়ক্ষমতার বাহিরে চলে যাচ্ছে বলে মনে করছেন সাধারণ মানুষ।
জানাযায়,গত দুই তিনদিন আগে বাজারের সবজির দামের চেয়ে বর্তমানে সবজির দাম অনেক বেশি নেওয়া হচ্ছে। বেশ কিছুদিন ধরে যে সবজির দাম ক্রেতাদের স্বস্তি দিচ্ছিল,সেই সবজি হঠাৎ করেই অস্বস্তির কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। পাশাপাশি একে অপরের সাথে পাল্লা দিয়ে বেড়েছে চাল, ডিম, মাছ ও মুরগির মাংসের দাম।
শনিবার(২৫ এপ্রিল )ডুমুরিয়ার বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখা যায়,রোজা আসতে না আসতেইবেগুন,করলা(উস্তা), ঝিঙ্গা,টমেটো,সিমসহ অন্যান্য সবজির দাম ও বেড়েছে। 
রোজার শুরুতে বেগুনের দাম এক লাফে ২৫ টাকা থেকে বেড়ে ৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। বর্তমান সময়ে অন্যতম সবজি লাউ বেশ কিছুদিন ধরেই প্রতি পিস ১০ থেকে ১৫ টাকা দামে বিক্রি হচ্ছিল। সেই লাউের দাম শনিবার বেড়ে হয়েছে  ২০ থেকে ২৫ টাকা।টমেটো, পটল,ঝিঙা,করলা,শিমসহ কেজি প্রতি সবজির দাম বেড়েছে ১৫ থেকে ২৫ টাকা পর্যন্ত। 
সবজির দাম বাড়ার বিষয়ে বাজারের ব্যবসায়ী সাঈদ শেখ ও আনন্দ বলেন,রোজার আগে সব রকমের সবজির দাম কম ছিলো,কিন্তু হঠাৎ রোজার শুরুতেই ব্যাপক হারে দাম বেড়েছে সবজির।ডুমুরিয়া পাইকারি কাঁচাবাজার থেকে দাম দিয়ে কিনতে হচ্ছে সবজি,যেকারণে বেশী দামেই বিক্রি করতে হচ্ছে।
এদিকে পেঁয়াজের আকাশ ছোঁয়া দামে কিছুটা ছেদ পড়লেও এখনো চড়া দামেই বিক্রি হচ্ছে। গত কয়েক  দিনে ৩০ টাকা প্রতি কেজি আমদানি করা পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছিলো,বর্তমানে দাম বড়ে ৫৫ থেকে ৬০ টাকা কেজিদরে,শুকনো ঝাল ২৫০ টাকা থেকে বেড়ে ৫০০ টাকা কেজি দরে, আলু ১৫ থেকে ২৩ টাকা কেজি দরে বিক্রি করা হচ্ছে। 
অন্যদিকে বিভিন্ন মাছের দাম নিার্ধারণ করা হয় মাছের আকার বুঝে বড় হলে বেশি আর ছোট হলে কম এমনটাই বললেন শফিকুল ইসলাম নামে এক মাছের পাইকারি আড়ৎদার। প্রতি কেজি রুই বিক্রি হচ্ছে ১৫০-২০০ টাকায়, কাতলা ১৬৫-১৮০ টাকা,তেলাপিয়া ১১০-১৩০ টাকা,গলদা চিংড়ি ৫৩০-৫৫০ টাকায়।
এছাড়া  মুরগির মাংসের দাম ও ডিমের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে। বয়লার বিক্রি হচ্ছে প্রতি কেজি ১৩০ থেকে ১৪০ টাকা দরে।আর ডিমের দামও বেড়েছে হঠাৎ লাল ডিম বিক্রি হচ্ছে ২৮-৩০ টাকা প্রতি হালি এবং হাঁসের ডিম বিক্রি হচ্ছে ৪৫-৪৮ টাকা প্রতি হালি।  


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
 
WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com