দুদকের মামলায় ওসি প্রদীপকে গ্রেপ্তার দেখানোর আদেশ

Published: মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর ১৫, ২০২০ ১০:৩৪ অপরাহ্ণ   |   Modified: মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর ১৫, ২০২০ ১০:৩৪ অপরাহ্ণ
 

স্বাধীন খবর ডট কম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এস এম কায়সার আশ্রাফীঃচট্টগ্রাম ব্যুরো।সিনহা হত্যাকান্ডে অভিযুক্ত টেকনাফের বরখাস্তকৃত ওসি প্রদীপ কুমার দাশকে দুদকের করা দুর্নীতির মামলায় গ্রেপ্তার দেখানোর আদেশ দিয়েছেন আদালত। গতকাল দুপুরে চট্টগ্রাম মহানগর সিনিয়র স্পেশাল জজ শেখ আশফাকুর রহমানের আদালতে আসামি প্রদীপ কুমার দাশের উপস্থিতিতে এই আদেশ দেয়া হয়েছে। এর আগে বেলা ১ টার কিছু পর পুলিশের কড়া নিরাপত্তায় প্রদীপ কুমার দাশকে এজলাস কক্ষে আনা হয়। পরে ১০ মিনিটেরও কম সময়ের মধ্যে আদালত এই মামলার শুনানি কার্যক্রম শেষ করে। এ সময় রাষ্ট্রপক্ষ ও আসামিপক্ষের আইনজীবীরা উপস্থিত ছিলেন।জানতে চাইলে দুদকের আইনজীবী কাজী ছানোয়ার আহমেদ লাভলু গতকাল সাংবাদিকদের বলেন, দুদকের আবেদনের প্রেক্ষিতে আদালত আসামি প্রদীপ কুমার দাশের বিরুদ্ধে কাস্টডি ওয়ারেন্ট ইস্যু করেন। তিনি জানান, আসামিপক্ষের আইনজীবীরা আদালতে দুটি পিটিশন দাখিল করেছেন। একটি পিটিশনে আসামির জামিন আবেদন করা হয়েছে, অন্যটি শারীরিক অসুস্থতাজনিত কারণ দেখিয়ে তাকে চিকিৎসা প্রদান করা।দুদকের আইনজীবী বলেছেন, আসামি অসুস্থ নন, তার অসুস্থতার কোনো রিপোর্ট আসেনি। যদি অসুস্থ হয়ে থাকেন তখন কারাবিধি অনুযায়ী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে। কারণ কারাবিধিতেই বলা রয়েছে, অসুস্থ হলে নিয়মানুযায়ী আসামিকে উপযুক্ত চিকিৎসা দেয়া হবে। এটা নরমালি যেকোনো আসামির ক্ষেত্রেই হয়ে থাকে। এতে করে আমরা সে বিষয়ে কোনো আপত্তি উত্থাপন করিনি। অন্যদিকে আসামিপক্ষের করা জামিন আবেদন আগামী ২০ সেপ্টেম্বর শুনানির দিন ধার্য্য করেছেন আদালত। এছাড়া আদালত মামলার মূল ধার্য্য তারিখ আগামী ১৩ অক্টোবর নির্ধারণ করেছেন। ওইদিন মামলাটির তদন্ত প্রতিবেদন জমা ও আসামি হাজির করার কথা রয়েছে বলে জানান অ্যাডভোকেট কাজী ছানোয়ার আহমেদ লাভলু। তবে মামলায় এজাহারনামীয় প্রধান আসামি ওসি প্রদীপের স্ত্রী চুমকি কারণ পলাতক থাকায় তার বিষয়ে কোনো শুনানি হয়নি বলে জানান তিনি।আসামিপক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট রতন কুমার চক্রবর্তী বলেছেন, এটা দুদকের মামলা। আমরা এজাহার পর্যালোচনা করে দেখেছি. এখানে উনার (প্রদীপ কুমার দাশ) স্ত্রী চুমকি কারণের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়েছে, ওসি প্রদীপের বিরুদ্ধে তেমন একটা অভিযোগ উল্লেখ করা হয়নি। সেই কারণে আমরা আসামি প্রদীপের জামিন আবেদন করেছিলাম। তিনি বলেন, এই পর্যন্ত তাকে একাধিকবার রিমান্ডে নেয়া হয়েছে। যদি তিনি শারীরিকভাবে অসুস্থ হয়ে পড়েন তাহলে উনাকে যাতে কারাবিধি অনুযায়ী উপযুক্ত চিকিৎসা দেওয়া হয় সেজন্য আদালতের কাছে আরেকটি আবেদন করেছি। এই ব্যাপারে আমরা কোনো রিপোর্ট তলব করিনি। তবে আদালত এই বিষয়ে এখনো কোনো শুনানি করেননি।দুদকের আইনজীবীরা জানান, দুদকের মামলায় গ্রেপ্তার দেখানোর আদেশের পর তদন্ত কর্মকর্তা এখনো আসামির বিরুদ্ধে কোনো রিমান্ড আবেদন করেননি। এছাড়া মামলায় নথিভুক্ত আসামির অবৈধভাবে উপার্জিত যেসব সম্পদ রয়েছে সেগুলো জব্দ বা ক্রোকের জন্য প্রধান কার্যালয়ের অনুমতি সাপেক্ষে শীঘ্রই একটি আবেদন করা হবে।এর আগে গত ২৩ আগস্ট প্রদীপ কুমার দাশ ও তার স্ত্রী চুমকি কারণের বিরুদ্ধে জ্ঞাত আয় বহির্ভুত ৩ কোটি ৯৫ লাখ ৫ হাজার ৬৩৫ টাকার সম্পদ ও ১৩ লাখ ১৩ হাজার ১৭৫ টাকার সম্পদের তথ্য গোপনের অভিযোগ এনে একটি মামলা দায়ের করা হয়। মামলার এজাহারে চুমকি কারণকে এজাহারনামীয় ১ নম্বর আসামি ও প্রদীপ কুমার দাশকে ২ নম্বর আসামি করে দুর্নীতি দমন কমিশন আইন, ২০০৪ এর ২৬ (২) ও ২৭ (১), মানি লন্ডারিং আইন, ২০১২ এর ৪ (২), ১৯৪৭ সালের দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫(২) ধারাসহ দন্ডবিধি ১০৯ ধারায় অভিযোগ আনা হয়েছে। এর আগে গত ১২ সেপ্টেম্বর দুপুরে প্রদীপ কুমার দাশকে কঙবাজার কারাগার থেকে চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগারে আনা হয়।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
 
WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com