বোরহানউদ্দিন ও দৌলতখানে কর্মহীন ৩৬ হাজার পরিবারের পাশে দাড়ালেন-এমপি মুকল।

Published: শনিবার, মে ২৩, ২০২০ ১০:৪৭ অপরাহ্ণ   |   Modified: শনিবার, মে ২৩, ২০২০ ১০:৪৭ অপরাহ্ণ
 

স্বাধীন খবর ডট কম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আছিফুর রহমান জুয়েল
নিজস্ব প্রতিনিধি।

করোনা ভাইরাসের প্রভাবে কর্মহীন হয়ে পরা নিজ নির্বাচনী এলাকা ভোলার দৌলতখান ও বোরহানউদ্দিন উপজেলার ৩৬ হাজার খেটে খাওয়া অসহায় পরিবারের পাশে দাড়িয়েছেন ভোলা-২ আসনের সংসদ সদস্য আলী আজম মুকুল।

১লা এপ্রিল থেকে টানা অদ্যবধি পর্যন্ত নির্বাচনী এলাকায় অবস্থান করে নগদ অর্থ ও খাবার সামগ্রী ৩ ধাপে এই ৩৬ হাজার পরিবারের মাঝে তিনি নিজে উপস্থিত হয়ে বিতরন করেন।

এছাড়াও তিনি দুই উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে হ্যান্ড স্যানিটাইজার, হ্যান্ড রাব বিতরন সহ
জীবনের ঝুকি নিয়ে সংবাদ সংগ্রহকারী  সাংবাদিকদের মাঝেও পিপিএ বিতরন করেন।

এমপি মুকুল এর  ১ম ও ২য় দফায় বিতরনকৃত ত্রান সামগ্রীর মধ্যে ছিল- ১০ কেজী চাল, ৫ কেজী আলু, ১ কেজী ডাল, ১ লিটার সয়াবিন তেল, ১ কেজী লবন ও ২ টি করে সাবান।

৩য় দফায় তিনি যে ত্রান সামগ্রী দিয়েছেন তাতে যোগ করেন নতুন কিছু। সেখানে ছিল- ৫ কেজী চাল, ২ কেজী আলু, ১ কেজী ডাল, আধা কেজী চিড়া, ২ প্যাকেট সেমাই, ১ লিটার লিকুইড দুধ, আধা কেজী খেজুর ও ১ কেজী চিনি।

এ ব্যপারে জানতে চাইলে এমপি মুকুল বলেন, আমার নির্বাচনী এলাকার ২ উপজেলায় ১৮ টি ইউনিয়ন ও ২ টি পৌরসভা রয়েছে। এর মধ্যে দৌলতখান উপজেলার ২ টি ইউনিয়ন মূল ভূ-খন্ড থেকে সম্পুর্ণ বিচ্ছন্ন। আমি নির্বাচনের সময় প্রতিটি মানুষের দোড় গিয়ে ভোট চেয়েছি। তেমনি করে আজ তাদের এই দুঃসময়ে পাশে দাড়ানো আমার একান্ত দ্বায়িত্ব ও কর্তব্য।

তিনি আরো বলেন, ভাইরাসের ভয়ে আমি ঘরে বসে থাকি নি। প্রতিদিনই ছুটে বেড়িয়েছি আমার নির্বাচনী এলাকার এ প্রান্ত থেকে ওই প্রান্ত পর্যন্ত।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর যে নির্দেশনা গুলো ছিল সেগুলো নিজে মাইক হাতে নিয়ে প্রচার করেছি।

জনসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষে কাজ করেছি এবং করে যাচ্ছি। কন্টোল রুম চালু করে খাবার সামগ্রী পাঠিয়েছি অসংখ্য পরিবারের কাছে, যাদের পরিচয় গোপন রেখেছি।

এমপি মুকুল বলেন, যতদিন এই পরিস্থিতির উন্নতি না হবে ততদিন আমি খেটে খাওয়া সাধারন মানুষের পাশে থাকব।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
 
WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com