ভিপি নুরের সাথে ট্রাম্প ও পুতিনের স্ক্রিনশট ভাইরাল

Published: রবিবার, ডিসেম্বর ২৯, ২০১৯ ৫:৪৭ অপরাহ্ণ   |   Modified: রবিবার, ডিসেম্বর ২৯, ২০১৯ ৫:৪৭ অপরাহ্ণ
 

স্বাধীন খবর ডট কম

ঢাবি প্রতিবেদক: এবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের(ডাকসু) ভিপি ও বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক নুরুল হক নুরের সাথে আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এবং রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন এর সাথে হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ চ্যাটের একটি স্ক্রিনশট ভাইরাল হয়েছে। স্ক্রিনশটটি পুতিনের মোবাইল থেকে ভাইরাল হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, স্ক্রিনশটটি পুতিনের মোবাইল থেকে ফাঁস করতে সহোযোগিতা করেছে গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যরা। হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট গ্রুপটির নাম ইংরেজিতে লিখা হয়েছে ‘team3’। তাতে যা লেখা রয়েছে তা বাংলায় অনুবাদ করলে হয়-

পুতিনঃ হ্যালো নুর, আছো?
নুরঃ জ্বি স্যার!
পুতিনঃ রাশিয়া তোমার সাথে আছে! ট্রাম্পের কি খবর? কিছু বললো?
ট্রাম্পঃ ছাত্রলীগকে নির্মূল করতে হবে। আমরা তোমার সাথে আছি নুর।
নুরঃ আমি আপনাদের প্রতি চির কৃতজ্ঞ থাকবো।

এর আগে গতকাল(২৮ ডিসেম্বর) আর একটি স্ক্রিনশট ভাইরাল হয়, যেটি জাতীয় দৈনিক ইত্তেফাক পত্রিকায় প্রথম প্রকাশ হয়। ইত্তেফাক পত্রিকার সূত্রে,“বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপার্সন তারেক রহমান , নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক আসিফ নজরুল নামে আইডি থেকে হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ চ্যাটের কিছু স্ক্রিনশট ভাইরাল হয়েছে।

বলা হচ্ছে, এই কথোপকথন ডাকসু ভিপি নুরুল হক নুরের সঙ্গে হয়েছে। তবে এটি আসলেই তাদের কথোপকথন কিনা তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি। বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে ভাইরাল হওয়া এই স্ক্রিনশট নিয়ে খবর প্রকাশ হয়েছে। এমন অবস্থায় অনেকে প্রশ্ন করেছে এটি কি ঐ চারজনের কথোপকথন?

হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট গ্রুপটির নাম ইংরেজিতে লিখা হয়েছে ‘team4’। নামের নিচে আসিফ, মান্না ও তারেক দেখা যাচ্ছে।

স্ক্রিনশটে দেখা যায়- তারেক নামের আইডি থেকে লেখা হয়েছে, ‘নুর আন্দোলন তো জমলো না।’

উত্তরে নুর নামের আইডি থেকে লেখা হয়েছে, ‘স্যার সব চেষ্টা তো হলো।’

এরপর তারেক নামের আইডি থেকে লেখা হয়, ‘আরও প্ল্যান করে করা উচিত সব। আমি আগেও বলেছি, লাশের বিকল্প নাই। যেকোনো উপায়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়কে উত্তপ্ত করতে হবে। সকল নির্দেশনাই দেয়া হয়েছিল।’

এরপর আসিফ নামের আইডি থেকে লেখা হয়, ‘কামাল স্যারের সাথে তো বসা যায়।’

উত্তরে তারেক নামের আইডি থেকে লেখা হয়, ‘নো, ভ্যালুলেস।’

এরপর মান্না নামের আইডি থেকে লেখা হয়, বাম ছাত্রসংগঠনগুলোর কী অবস্থা নুর? নুর নামের আইডি থেকে লেখা হয়, আমাদের সাথে আছে স্যার।

মান্না নামের আইডি থেকে নির্দেশনা আসে, ‘কাজে লাগাও।’ নুর নামের আইডি থেকে তখন ছুরি হাতে শিবির নেতা বলে পরিচিত যুবক সালেহ উদ্দিন সিফাতের ছবি দেয়া হয়।’

ছবি দেখে মান্না নামের আইডি থেকে লেখা হয়, ‘ওদের কাজই এগুলো করা। এখন সত্য কিছু দিলেও পাবলিক আর বিশ্বাস করে না ওদের।’

এরপর নুর নামের আইডি থেকে লেখা হয়, ‘মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের মামুনদের ধরা না হলে আন্দোলন জমতো। আর ফারাবিও সুস্থ হয়ে গেল।’

তখন তারেক নামের আইডি থেকে লেখা হয়, ‘টক টু নিউ জেসিডি কমিটি, ডু সামথিং ইন প্রোপার ওয়ে।’

ভিপি নুর ও তারেক রহমানের আলাপের স্ক্রিনশট ভাইরাল!
ভাইরাল হওয়া স্ক্রিনশট।”

তবে ভাইরাল হওয়া দুটি স্ক্রিনশট নিয়েই চলছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপক সমালোচনা। বেশিরভাগ মানুষই এগুলোকে গুজব এবং এডিট করা স্ক্রিনশট বলে মন্তব্য করছেন।

সাজ্জাদ রহমান সাব্বির নামের একজন লিখেছেন,“এটা ফেক সেটা সবাই জানে সো এটা নিয়ে মাতামাতি করে লাভটা কি?”

জামাল রুহানি নামের একজন লিখেছেন,‘আসুন গুজবকে না বলি; যে দলই করুক, যে জনই করুক…..
ভালোর সঙ্গেই আলো।’

এবিষয়ে নুরের সহযোগী বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক মুহাম্মদ রাশেদ খাঁন দ্যা ডেইলি নিউজ ফ্রন্টকে বলেন,‘কারও মোবাইল নাম্বার ফোনে যে নামে সেভ থাকে, WhatsApp এর গ্রুপ চ্যাটিং করার সময়ও সেই একই নাম আসে। স্ক্রিনশট বানানোর আগে আরও প্রশিক্ষণ জরুরি।’

তিনি আরও বলেন,‘সংবাদ প্রকাশ করার আগেও সত্যতা জেনে বা অভিযুক্তের বক্তব্য নেওয়া বস্তুনিষ্ঠ সাংবাদিকতার অংশ।’