মুক্তিযোদ্ধার সনদ পত্র থাকা সত্বেও স্বাধীনতার ৪৯ বছর পরেও আসির উদ্দীনের ভাগ্যে জোঠেনি মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি

Published: বৃহস্পতিবার, ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০২০ ১২:৩২ অপরাহ্ণ   |   Modified: বৃহস্পতিবার, ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০২০ ১২:৩২ অপরাহ্ণ
 

স্বাধীন খবর ডট কম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  



আরিফ বিল্লাহ, ভ্রাম্যমান প্রতিনিধি ঃ
স্বাধীনতার ৪৯ বছর অতিবাহিত হলেও ডুমুরিয়া উপজেলার মাগুরা ঘোনা ইউনিয়নের চন্ডিপুর গ্রামের মৃত আব্দুর রহমানের ছেলে মোঃ আসির উদ্দীন পায়নি মুক্তিযোদ্ধা স্বীকৃতি। মৃত্যুর আগে মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি পাওয়ার জন্য তিনি এখন দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন।
জানাযায়, ডুমুরিয়া উপজেলার চন্ডিপুর গ্রামের আসির উদ্দীন ১৯৭১ সালের বঙ্গবন্ধুর ভাষণে উদ্ধুদ্ধ হয়ে মহান মুক্তিযুদ্ধে ঝঁাপিয়ে পড়েন। তিনি যুদ্ধে অংশগ্রহন করে সাতক্ষীরার আলীপুর এলাকাসহ পাশ্ববতর্ী কয়েকটি এলাকায় সসস্ত্র যুদ্ধে অংশগ্রহন করেন। তার সহযোদ্ধা কয়েক জন মুক্তিযোদ্ধা হলেন উপজেলার আরশনগর এলাকার আতিয়ার মোড়ল, ফারুক হোসেন, রফিকুল ইসলাম, মকছেদ আলী। মুক্তিযোদ্ধা কালীন কমন্ডার ছিলেন কামরুজ্জামান টুকু, গ্রুপ কমান্ডার মকদুল ইসলাম, আঞ্চলিক কমান্ডার সামছুর রহমানের দিক নিদের্শনায় নয় মাস যুদ্ধে জীবন বাজি রেখে দেশ স্বাধীন করেন। তার মুজিব বাহিনী সনদ নং-১৬১৫ ।
মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি না পাওয়া আসির উদ্দীন বলেন, জীবনের শেষ ইচ্ছা যুদ্ধ করেছি জীবন বাজী রেখে আর এখন মুক্তিযুদ্ধার স্বীকৃতি পাবার জন্য ৪৯ বছর অফিস আদালতের ধারে ধারে ঘুরছি। বেচেঁ থেকেই যেন মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি টুকু পাই। দেশ মাতৃকার টানে ১৯৭১ সালে ৭মার্চ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জ্বালাময়ী ভাষণ রেডিওতে শোনার পর যুদ্ধে যাবার প্রস্তুতি নিতে চাইলে পরিবারের পক্ষ থেকে আসে নানান বাঁধা।
তখন মনে ছিল অদম্য সাহস আর দেশ প্রেম। তখন তার আদর্শ , সাহস আর মনোবল সবটুকুই ছিল জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। ১৯৭১ সালে আসির উদ্দীন ছিলেন এস এস সি পাশ করা ১৮ বছরের টকবগে কিশোর। ১৯৭১ সালের ৭শে মার্চে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমনের ভাষনের পর থেকেই পাকিস্থানী হানাদার বাহিনীর যখন বিভিন্নভাবে বাঙ্গালীদের উপর অত্যাচার,জুলুম আর অবিচার শুরু করে। তখন জীবনের মায়া ত্যাগ করে তিনি দেশ স্বাধীন করার লক্ষ্যে যুদ্ধে ঝাপিয়ে পড়েন।
জীবনের শেষ প্রান্তে তিনি মুক্তিযুদ্ধের স্বীকৃতি নিয়ে যেন মরতে পারেন তার জন্য আকুল আবেদন করছেন মুক্তিযোদ্ধা প্রেমী বর্তমান সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী মাদার অব হিউমিনিটি দেশরত্ন শেখ হাসিনার কাছে।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
 
WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com